কিছুদিন আগে বিশ্ববিখ্যাত স্কলার (John Esposito) জন এসপোজিডোর সাথে দেখা হলো। এসপোজিডো একজন খ্রিষ্টান, কিন্তু ইসলামের পক্ষে তিনি প্রচুর কাজ করেছেন। এ কারণে, অনেক অনেক মুসলিম স্কলারও তাঁকে উস্তাদ হিসাবে গণ্য করেন।

তো যাই হোক, তাঁর সাথে দেখা হবার পর, আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দু’জন তাঁকে বললাম যে, “আমরা বাংলাদেশের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এসেছি”।

তিনি বললেন, “ও…। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তো আমি চিনি। সেখানে গেস্ট শিক্ষক হিসাবে ছিলাম কিছুদিন।”

তারপর তিনি তাঁর অভিজ্ঞতার কথা শুনালেন আমাদের।

একদিন তিনি ক্লাস নিচ্ছেন। হঠাৎ দেখলেন ছাত্ররা সব বেঞ্চের উপর দাঁড়িয়ে গিয়েছে। তিনি ভাবলেন, সম্ভবত তাঁর ক্লাস ছাত্রদের পছন্দ হয় নি, তাই ছাত্ররা দাঁড়িয়ে গিয়েছে। কিন্তু তিনি পরে বুঝতে পারলেন, বাইরে মারামারি হচ্ছে। ছাত্ররা মারামারিতে অংশ নেয়ার জন্যে ক্লাস ছেড়ে চলে যাচ্ছে।

তিনি বললেন, “এ ঘটনা দেখে আমি আশ্চর্য হয়ে গেলাম। কেন ছাত্ররা ক্লাস ছেড়ে মারামারি করতে গেলো?”

তাঁর এ প্রশ্ন শুনে আমরা খুবই লজ্জিত হয়ে গেলাম। তাঁকে কোনো উত্তর দিতে পারি নি।

তবে এখন মনে হচ্ছে, এসপোজিডোর ভাগ্য ভালো ছিলো। তিনি কেবল ছাত্রদের মারামারি দেখেছেন, কিন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মারামারি তো আর তিনি দেখেন নি!!!

এসপোজিডো আসলে বুঝতে ভুল করেছেন। আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হলো একটি শারীরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। মারামারিতে দক্ষরাই এখানে শিক্ষক হতে পারে, এবং মারামারিতে দক্ষ ছাত্ররাই এখানে হলে থাকার জন্যে স্কলারশিপ পায়।