Tags » Showbiz News

Music Hall Monster: The Insatiable Fred Barnes at Wilton’s Music Hall

Music Hall Monster: The Insatiable Mr. Fred Barnes is a comedy show inspired by the real-life music hall singer who fell from the stars due to his addictions: alcohol, sex and audience appraisal. 224 more words

Showbiz News

New Gundam Breaker

So an exciting new trailer for the new Gundam Breaker game from BANDAI NAMCO Entertainment Europe has been revealed. If you still don’t know what Gundam is just check out the end of Ready Player One. 130 more words

Showbiz News

চোখের রঙ দিয়ে চিনে নিন মানুষ

জানেন চোখের রঙ থেকে মানুষের স্বভাব ও চরিত্র বলা যায়৷ সাধারণত হালকা ব্রাউন ও কটা চোখের মানুষ আমরা বেশি দেখতে পাই৷ কিছু কিছু ক্ষেত্রে নীল ও সবুজ রঙের চোখও খুঁজে পাওয়া যায়৷ তবে ভারতীয়দের মধ্যে তা খুব কমই দেখা যায়৷ কিন্তু আজ ছয় রকমের চোখের রঙ নিয়ে আলোচনা করা হবে৷ চোখের রঙ থেকে এবার মানুষ চিনে নিন৷

১) কালো চোখ: যাদের চোখের রঙ কালো তারা খুব রহস্যময় হয়৷ এরা আগে থেকে কোনও কিছুর পূর্বাভাস পেয়ে যায়৷ এদের উপর ভরসা করা যায়৷ কালো রঙের চোখের মানুষ খুব বুদ্ধিমান হয়৷ কোন কাজের দায়িত্ব পেলে তা শেষ করেই ছাড়ে৷ খুব কর্মঠ হয়৷ জীবনে মান সম্মান প্রতিপত্তি ও আর্থিক ভাবে সচ্ছল হয়৷

২) বাদামি রংয়ের চোখ: যাদের চোখ ঘোলাটে তারা খুব আনন্দ ফূর্তি করতে ভালোবাসে৷ সাধারণ জীবন যাপনে অভ্যস্ত৷ সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারে৷ সব পরিস্থিতিতে নিজেকে সুন্দর মানিয়ে নিতে পারে৷ এই স্বভাবের জন্য অনেকে এদের প্রতি আকর্ষিত হন৷

৩) ঘোলাটে চোখ: যাদের কটা চোখ তারা খুব আকর্ষণীয় হয়৷ এদের আত্মবিশ্বাস প্রবল৷ দৃঢ়চেতা স্বভাবের কিন্ত কখনও কখনও এরা অন্যের কাছে নিজেকে ঠিক মতো মেলে ধরতে পারে না৷ এরা ধনী হয়৷

৪) ধূসর চোখ: যাদের চোখের রঙ ধূসর তারা খুব প্রভাবশালী হন৷ তাই বলে আক্রমণাত্মক মনোভাব এদের থাকে না৷ বরং এরা খুব বিনম্র ও সাহসী হয়৷ কাউকে ভালোবাসলে অন্তর থেকে ভালোবাসে৷ এদের বিশ্লেষণ ক্ষমতা খুব ভালো৷ যা বলে যুক্তি দিয়ে বলে৷ এদের সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার মানসিকতা থাকে৷

৫) সবুজ চোখ: যাদের চোখের রঙ সবুজ তারা খুব বুদ্ধিমান হয়৷ এরা অন্যকে যেকাজে উৎসাহিত করতে পারে৷ কোনও কাজ করবে বলে ঠিক করলে উদ্যম নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে৷ তবে এদের মধ্যে ঈর্ষান্বিত মনোভাব থাকে৷

৬) নীল চোখ: যাদের চোখের রঙ নীল তাদের চেহারা খুব আকর্ষিত হয়৷ দেখতে শান্ত স্বভাবের হলে এরা ফ্লার্ট করতে খুব ভালোবাসে৷ অন্যকে খুশি করতে চায়৷ খুব দয়ালু হয়৷ সব বিষয়ে এদের জ্ঞান থাকে৷

লাইফস্টাইল

‘জড়োয়া’র পর এবার অঙ্কিতার জীবনে নয়া রত্ন ‘কোহিনূর’

‘জড়োয়া’ এবার আসতে চলেছ ‘কলকাতায় কোহিনূর’-এ৷

হ্যাঁ ঠিকই ভাবছেন, কথা হচ্ছে টলিপাড়ার লাস্যময়ী অঙ্কিতা মজুমদারকে নিয়ে৷ যিনি ‘জড়োয়ার ঝুমকো’ সিরিয়ালে জড়োয়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন৷

কিন্তু কেন তাকে নিয়ে হঠাৎ এত কথাবার্তা জানেন?

কারণ অঙ্কিতাকে এবার দেখা যাবে বড়পর্দায়৷ পরিচালক শান্তনু ঘোষের আগামী সাসপেন্স থ্রিলার ‘কলকাতায় কোহিনূর’ ছবিতে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, বরুণ চন্দ, ইন্দ্রানী দত্তের মতো স্টারকাস্টদের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করবেন অঙ্কিতা৷ কলকাতা ২৪x৭-এর প্রতিনিধি মৌসুমী দাসের সঙ্গে অঙ্কিতা শেয়ার করলেন তার জীবনের বেশকিছু অভিজ্ঞতা৷ চাকদহের মেয়ে অঙ্কিতা কতটা স্ট্রাগল করে নিজের জমি শক্ত করেছেন টলিপাড়ায় তাও জানালেন তিনি৷

ছবিটি নিয়ে তাঁর বিশ্বাস বিভিন্ন বয়সী দর্শকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করবে এই ছবি৷ পাশপাশি অঙ্কিতার ফ্যানেদের জন্য রয়েছে সুখবর৷ এই ছবিতে নয়া অবতারে পাওয়া যাবে তাঁকে।

১. একজন সেলিব্রিটি হওয়ার পর নিজের জীবন থেকে কি কি শিখেছো?

নিজেকে আরও কিভাবে শান্ত এবং ঠান্ডা রাখতে হয়, নিজের কাজকে আরও ভালোবাসা এবং কাজের ওপর ডিপ্লোম্যাটিক হওয়া৷

২. ‘জড়োয়া’ এবং অঙ্কিতার মধ্যে সবথেকে কমন বিষয় কি কি?

দুজনেই বেশ অন্তর্মুখী এবং আশাবাদী।

৩. আগামী কয়েকবছরে নিজের জীবন থেকে কি কি পেতে চাও?

আগামী কয়েকবছরে নিজেকে আরও ভালো অভিনেত্রী হিসাবে দেখতে চাই এবং একজন প্রযোজক হিসেবে নিজের একটি প্রযোজনা সংস্থা খুলতে চাই৷

৪. কাজের ফাঁকে বিরতি পেলে কি করেন?

বিভিন্ন ধরণের শর্ট ফিল্ম এবং সিনেমা দেখতে ভালোবাসি৷ গান শুনি এবং আমার বই পড়তেও খুব ভালোলাগে৷

৫. আজ এই জায়গায় আসতে কি কি চ্যালেঞ্জ ফেস করতে হয়েছে তোমাকে?

কেরিয়ারের প্রথমদিকে আমি আমার পরিবার থেকে কোনও সমর্থনই পাইনি৷ প্রথম প্রথম কলকাতায় নিজেকে একা লাগতো৷ কিন্তু কাজের প্রতি আমার প্যাশন এবং ডেডিকেশন আজ আমায় এখানে পৌঁছে দিতে সাহায্য করেছে৷

৬. যদি অভিনেত্রী না হতে তাহলে তুমি কোন পেশায় যেতে?

যদি আমি অ্যাক্টর না হতাম তাহলে আমি স্কুল টিচার বা নিউজ রিডার হতাম৷

৭. কিসে ভয় পাও?

আমার ভূতে বেশ ভয় লাগে, তবে ভয়কে এনজয় করি৷

৮. কখনও কোন ফ্যান তোমার জন্য কিছু করেছে বলে মনে আছে?

একটা ঘটনা বেশ মনে আছে৷ ‘জড়োয়ায় ঝুমকো’ সিরিয়ালে যখন জড়োয়া অন্তঃসত্ত্বা হয়েছিল, সেই সময় আমার এক ফ্যান আমায় সাবধান থাকার উপদেশ দিয়েছিল৷

৯. যদি অঙ্কিতার কেউ স্পেশাল অ্যাটেনশন নিতে চায় তাহলে তাকে কি করতে হবে?

লাইফস্টাইল

কেন কারেনজিৎ থেকে নাম হল সানি? ফাঁস হবে সেই তথ্য

বায়োপিকের এক আলাদা ময়দান তৈরি হয়েছে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে ৷ আসা যাক সোজা বলিউডে ৷ কখনও খেলার জগত, কখনও সাউথের অ্যাডাস্ট স্টার, কখনও বা বলিউডের লেজেন্ড ৷ সবেতেই এখন বায়োপিকের আমেজ ৷ শ্রীদেবীর মৃত্যুর পরই যেমন শোনা গেল রাম গোপাল বর্মা তাঁকে নিয়ে বায়োপিক করতে চান ৷ বায়োপিকে অভিনয় করছেন এ-লিস্টেড স্টাররা ৷ কিছু বায়োপিকের ইউএসপি হল তারকার কনট্রোভআরশিয়াল লাইফ ৷ তেমনি খবর এল এবার বায়োপিক হতে চলেছে লানি লিওনির জীবন নিয়ে ৷
কন্ট্রোভার্সি আর সানি লিওনি ৷ কথা দুটি খুব একটা অচেনা নয় একে অপরের থেকে ৷ ইনস্টাগ্র্যামে নিজেই পোস্ট করে জানালেন ফ্যানদের যে আসতে চলেছে তাঁর বায়োপিক ৷ তাঁর বড়ো হয়ে ওঠা, অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে আসা, সেই ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে বলিউড ৷ কেন কারেনজিৎ থেকে নাম হল সানি? কেন এলেন সুদূর কানাডা থেকে ভারতে? সবকিছুর পেছনে রয়েছে কী কারণ ? সেই সবই খোলসা হবে তাঁর বায়োপিকে ৷ তাঁর এবং প্রতিটি চরিত্রে কে কে থাকছেন অভিনয় সে বিষয়ে এখনও জানা যায়নি ৷

লাইফস্টাইল

বলিউড HOTTIE বিরক্ত হলেন এসআরকের ফোটোগ্র্যাফিতে

বলিউডের বাদশাহ তুললেন সেলফি আর বিরক্ত হলেন কিনা অন্য কেউ ! বললেন, খুব খারাপ ছবি তোলেন বাদশাহ ! এত সাহস হল কার ? সাহস হল ক্যাটরিনা কাইফের ৷ তাঁর মতে শাহরুখের ছবি তোলার স্কিলস একেবারেই খারাপ ৷

আনন্দ এল রাইয়ের আগামী ছবি ‘জিরো’র সেটে যাওয়ার পথে গাড়িতে বসে সেলফি তুলেছিলেন শাহরুখ ৷ ছবিটা বেশ অন্ধকার এসেছিল কোন কারণে ৷ সেটা তিনি আপলোডে করে ক্যাপশনে লিখেছেনও ৷ বলিউড কিং-এর এক ঝলক পেতে পাগল হয়ে যায় লক্ষ লক্ষ ফ্যান ৷ তাতে ছবি ব্লারড আসুক বা অন্ধকার ৷

কিন্তু সন্তুষ্ট নন ক্যাটরিনা ৷ স্যারক্যাস্টিক ভঙ্গিতে শাহরুখ তাঁকে নিজের মিডিয়া ম্যানেজারের পোস্টও দিয়ে দিয়েছেন ৷ শাহরুখের “লাস্ট ডার্ক সেলফি”-তে ভীষণ বিরক্ত হয়ে ক্যাটরিনা নিজেই তুলে দিলেন তাঁর ছবি ৷ আর ছবিতেও দেখা যাচ্ছে কিং খান একেবারে বাধ্য ছেলের মতো ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে ৷ সেই ছবি তুলে শাহরুখের আপলোড করার পর শান্তি পেলেন ম্যাডাম ৷ সাহস আছে বলতে হবে ক্যাটরিনার

লাইফস্টাইল

যৌনতা নিয়ে এ সব প্রশ্ন ঘোরে মহিলাদের মনে, উত্তর মেলে কি?

যৌনতা নিয়ে অনেক প্রশ্নই ঘোরে মহিলাদের মনে। কিন্তু বিভিন্ন কারণে কৌতূহল প্রকাশ করতে পারেন না তাঁরা। এমন কিছু প্রশ্ন মাথাচাড়া দেয়, যা পার্টনারকেও জিজ্ঞেস করতে সংকোচ বোধ হয়। প্রশ্নগুলো তাই প্রশ্ন হয়েই রয়ে যায়, উত্তর মেলে না। যা অনেক সময় প্রভাব ফেলে মিলনেও। যৌনতা নিয়ে কী ধরনের কৌতূহল হয় মহিলাদের?
সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, এক মহিলার সঙ্গে অন্য মহিলার শারীরিক সম্পর্ক দেখে উত্তেজিত হয়ে পড়েন অনেক মহিলাই। কিন্তু তা স্বাভাবিক নাকি বুঝে উঠতে পারেন না অনেকেই। পুরুষদের যৌন জীবনেও পর্ন ছবির প্রভাব রয়েছে। নিজেদের পছন্দের পর্ন তারকার গুণাগুণও অনেক সময় পার্টনারের মধ্যে খোঁজেন তাঁরা। কিন্তু মহিলাদের ক্ষেত্রে পুরুষ-মহিলা সঙ্গমের ছবিও যেমন প্রযোজ্য তেমনই লেসবিয়ান পর্ন দেখেও শরীরে উদ্দীপনা তৈরি হয়। যা অনেক ক্ষেত্রেই অস্বাভাবিক বলে মনে করেন তাঁরা। কিন্তু এর পিছনের বিজ্ঞানটা কী, তা জিজ্ঞেস করতে পারেন না।

সপ্তাহে পাঁচবার মাস্টারবেশন কি ঠিক?
পুরুষদের মতো মহিলারাও মাস্টারবেট করে থাকেন। যা একেবারেই স্বাভাবিক। এতে শরীর ও মন দুইই সুস্থ থাকে। কিন্তু সপ্তাহে পাঁচবার! সেটা কি বাড়াবাড়ি? জানতে ইচ্ছা করলেও সংকোচ হয়। পাছে কেউ যদি অতিরিক্ত যৌন পিপাসু ভাবে। তবে গবেষকরা জানাচ্ছেন, নিজের ও পার্টনারের এ নিয়ে কোনও সমস্যা না হলে সপ্তাহে চার-পাঁচবার মাস্টারবেশনে অসুবিধা নেই।

অ্যানাল সেক্স বেশি পছন্দ করা কি স্বাভাবিক লক্ষণ?
এমন ইচ্ছে অবশ্য খুব বেশি মহিলার ক্ষেত্রে দেখা যায় না। এ ক্ষেত্রে অরগ্যাজমের মাত্রাও হয় অত্যাধিক। চিকিৎসকের মতে, অ্যানাল সেক্সে মহিলাদের অরগ্যাজম বেশি হওয়ায় একবার যিনি এর স্বাদ পান, তিনি এই মিলনই বেশি পছন্দ করেন। তবে অনেকের ক্ষেত্রেই এই পজিশন কষ্টদায়ক। তাঁদেরকে সেক্স টয় ব্যবহারের পরামর্শও দিচ্ছেন চিকিৎসক।

পার্টনার অরগ্যাজমের অভিনয় করছেন না তো?
বিছানায় মহিলারাই সবচেয়ে ভাল অভিনয় করেন। সমীক্ষায় অন্তত তেমনটাই জানা গিয়েছে। তবে ৩০ শতাংশ পুরুষও নাকি এতে সিদ্ধহস্ত। যা কোনওভাবেই বুঝতে পারেন না মহিলারা। ফলে পার্টনার সত্যিই সুখী কিনা, সে নিয়ে মনে ধোঁয়াশা থেকেই যায়। চিকিৎসকদের মতে, মদ্যপান করলে কিংবা অতিরিক্ত ক্লান্তি থেকে এমনটা করে থাকেন পুরুষরা। তাই এ নিয়ে বিস্তর না ভেবে সেই সময়টাকে উপভোগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

মিলনের সময় বাতকম্য করা কি স্বাভাবিক?
মিলনের সময় বাতকম্য রতিসুখে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমন ধারণা অনেক মহিলারই। কারণ এই শব্দের না কোনও মাধুর্য রয়েছে, আর না কোনও আকর্ষণ। কিন্তু যোনিতে চাপ সৃষ্টি হলে অনেক সময় এ ঘটনা ঘটতেই পারে। এটি একেবারেই অস্বাভাবিক নয়। পজিশন বদলালেও এমনটা হয়।

লাইফস্টাইল